রূপগঞ্জ কায়েতপাড়া নির্বাচনকে ঘিরে বিশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে র‌্যাবসহ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

রূপগঞ্জের কায়েতপাড়া ইউনিয়নকে সর্বাধিক ঝুঁকিপূর্ন হিসেবে চিহ্নিত করে সেটিকে বিশেষ নজরদারিতে রেখেছেন স্থানীয় প্রশাসন। ইউনিয়নে চনপাড়া পূর্নবাসন কেন্দ্রে আছে ভাসমান লক্ষাধিক মানুষ। এদের মধ্যে রয়েছে ২২ হাজার ভোটার।

বিশেষ একজন প্রার্থীকে জেতাতে একটি মহল কোনঠাসা করে রেখেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী সকল প্রার্থীদের।

বিভিন্ন সভা সমাবেশ মিছিল মিটিংএ অংশ নিচ্ছেন প্রর্থীরা। নানা উস্কানীমূলক বক্তব্যে সে এলাকার পরিবেশ আরও উত্তপ্ত হয়ে উঠছে।

শনিবার ( নভেম্বর) রাত পৌনে ৮টার দিকে উপজেলার মুড়াপাড়া ইউনিয়নের ছয় নম্বর ওয়ার্ডের মাছিমপুর এলাকায় নির্বাচনকে ঘিরে একটি সালিশ বৈঠকে নম্বর ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বদ্বিতায় নির্বাচিত ইউপি সদস্য তাওলাদ হোসেনের শ্যালক মাছিমপুর গ্রামের মৃত আব্দুল জলিল মোল্লার ছেলে আবদুর রশিদ মোল্লাকে রূপগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহারিয়ার পান্না ওরফে ভিপি সোহেলের ঘনিষ্ঠ সহচর জসিম কাঁধে বন্দুক ঠেকিয়ে গুলি করে হত্যা করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

এছাড়াও  ৯ নভেম্বর আনুমানিক ১২:০০ ঘটিকায় এক প্রার্থীর কর্মী, সমর্থকগন হঠাৎ চনপাড়া এলাকা  হতে কালো হাইয়েস গাড়িযোগে  ডাক্তারখালি গ্রামে অবস্থিত অপর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সমর্থক এর বাড়িতে চড়াও হন।  ৭/৮ জন কালো মুখোশধারী লোক এসে  তাকে খুজে না পেয়ে নির্বাচনের দিন  এলাকায় আসলে মেরে ফেলার হুমকি  দিয়ে যান। এসময়, যাওয়ার  সময় মুল গেটে কয়েকটি ধাক্কা  দিয়ে  গাড়িযোগে চলে যায়।

আইনশৃঙ্খলা বাাহনী মোতায়েন থাকা স্বত্বেও কিছু বিশৃঙ্খলাকারী সুযোগ সন্ধানী চক্র নির্বাচনী প্রচারনায় সমর্থকদের মাঝে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে যাচ্ছে।

মুলত গত ২৭ অক্টোবর প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে প্রায় প্রতিদিন কায়েতপাড়ার বিভিন্ন গ্রামে সংঘর্ষ, হামলা লুটপাট আর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান যানবাহন ভাংচুর এবং অগ্নিসংযোগসহ বিভিন্ন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছে। এসব কারনে শান্তিপূর্ন ভোট গ্রহন নিয়ে সন্দেহ রয়েছে ভোটারদের মাঝে।
তবে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনসহ র‌্যাব বলছে যে কোন কিছুর বিনিময়ে কায়েতপাড়ায় একটি অবাধ সুষ্ঠ নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিবেন তারা।

নির্বাচন পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রনে ইউনিয়নে বিপুল সংখ্যব  র‌্যাবসহ মোতায়েন রয়েছে বিজিবি, পুলিশ গোয়েন্দা পুলিশসহ বেশ কয়েক প্লাটুন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য। তবে পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের।




বিষয় : নির্বাচন

মন্তব্য করুন

Logo

© 2021 Dinkal24 All Rights Reserved.