বিশ্ব ইজতেমা: আজ প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব আজ রোববার মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে। সকাল ১০টা থেকে ১১টার মধ্যে যেকোনো সময় আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা যায়। মোনাজাতে বাংলাদেশসহ বিশ্বের মানুষের সুখ, শান্তি ও কল্যাণ কামনা করে দোয়া করা হবে। বিদেশি নিবাসের পূর্বপাশে বিশেষ মোনাজাত মঞ্চ থেকেই এ আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করা হবে।

মোনাজাতের আগে ফজরের নামাজের পর থেকে বয়ান করে‌ছেন মাওলানা রবিউল হক। সকাল ৭টায় হেদায়েতি বয়ান করেন মাওলানা আব্দুর রহমান এবং তরজমা করবেন মাওলানা আব্দুল মতিন। সকাল সকাল ৯টা পর্যন্ত চলবে এ বয়ান। কিছুক্ষণ বিরতি পর তাশকিল ও হেদায়েতি বয়ান শুরু হবে। বয়ান করবেন ভারতের (হিন্দুস্তান) আল্লামা ইব্রাহীম দেওলা। বয়ান শেষে তাবলিগ জামাতের শীর্ষস্থানীয় মুরব্বিদের পরামর্শের ভিত্তিতে মাওলানা মোহাম্মদ জুবায়ের মোনাজাত পরিচালনা করবেন।

ইজতেমার মিডিয়া সমন্বয়কারী মুফতি জহির ইবনে মুসলিম  এসব তথ্য জানিয়েছেন।

আখেরি মুনাজাতে শরিক হতে শনিবার রাত থেকে মুসল্লিগণ বাস, ট্রাক, মিনিবাস, মাইক্রোবাস, ট্রেন ও ট্রলারে করে টঙ্গীতে আসতে শুরু করেছেন। রোববার সকাল থেকে টঙ্গী-গাজীপুরসহ আশপাশের এলাকা থেকে মোনাজাতে শরিক হতে হাজার হাজার নারী-পুরুষ পায়ে হেঁটে ইজতেমার মায়দানের দিকে আসতে দেখা গেছে। আখেরি মোনাজাতের আগ পর্যন্ত মানুষের এ ঢল অব্যাহত থাকবে।

চেরাগ আলী এলাকায় গাজীপুরের কাপাসিয়া থেকে মোশারফ হোসেনের সঙ্গে কথা হয়। তিনি বলেন, সকাল সাড়ে ৬টায় মোনাজাতে অংশগ্রহণ করার জন্য বিশ্ব ইজতেমার উদ্দেশ্যে রওনা দেই। গাজীপুরপুর চৌরাস্তা পর্যন্ত বাসে আসছি। তারপর পায়ে হেঁটে চেরাগ আলী পর্যন্ত আসতে পেরেছি। ইচ্ছা আছে যেখান থেকে মোনাজাত করা হবে সেখানে গিয়ে মোনাজাত ধরবো।

গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (ট্রাফিক) আলমগীর হোসেন বলেন, আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে শনিবার অর্থাৎ মোনাজাতের আগের দিন রাত ১০টা থেকে পরের দিন দুপুর ২টা পর্যন্ত ভোগড়া বাইপাস থেকে ঢাকাগামী সব পণ্য পরিবহন করে- এমন যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। বিশেষ করে ট্রাক ও পণ্যবাহী গাড়ি যেগুলো যাত্রী পরিবহন বা মুসল্লি যাত্রী নেবে না সেগুলো ভোগড়া বাইপাস থেকে টঙ্গীর দিকে যেতে পারবে না। যাত্রী পরিবহন গাড়ি ও মুসল্লি পরিবহন যান ওই সড়কে ব্যবহার করতে পারবে। তবে সেটা সীমিত পরিসরে।

তিনি আরও বলেন, যে সব মুসল্লিবাহী গাড়ি দেশের বিভিন্নস্থান থেকে এসেছে তাদের ইজতেমা মাঠ থেকে সুন্দরভাবে যানজট মুক্তভাবে বের করতে ভোগড়া বাইপাস থেকে ঢাকা বাইপাসের গাড়ি ডাইভারসন করা হবে, মীরের বাজার থেকে উলুখোলা-তিনশ ফিটের দিকে ঢাকার গাড়ি ডাইভারসন করব। কালিয়াকৈরের চন্দ্রা থেকে ঢাকা-টাঙ্গাইল রোডে গাড়ি ডাইভার্ট করা হবে। এ ছাড়াও কামারপাড়া রোড থেকে আব্দুল্লাহপুর হয়ে ঢাকায় গাড়ি চলবে। তবে সীমিত পরিসরে।

চারদিন বিরতি শেষে ২০ জানুয়ারি বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে। ২২ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে এ বছরের জন্য বিশ্ব ইজতেমা শেষ হবে।

মন্তব্য করুন

Logo

© 2023 Dinkal24 All Rights Reserved.