আওয়ামী লীগের সম্মেলন কেন্দ্র করে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রস্তুত র‍্যাব

আওয়ামী লীগের সম্মেলন কেন্দ্র করে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রস্তুত র‍্যাব। নিরাপত্তা নিয়ে কোনো শঙ্কা নেই বলে জানিয়েছেন র‍্যাব মহাপরিচালক এম খুরশীদ হোসেন।

শুক্রবার (২৩ ডিসেম্বর) সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সম্মেলনস্থল ঘুরে একথা জানিয়েছেন র‍্যাব মহাপরিচালক। তিনি বলেন, নির্বাচন সামনে রেখে রাজনৈতিক পরিস্থিতি উত্তপ্ত নয়। যেটা হচ্ছে, সেটাকে স্বাভাবিকই বলতে হবে। 

আগামীকাল ২৪ ডিসেম্বর ২০২২ রোজ শনিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ২২তম জাতীয় সম্মেলন আয়োজন উপলক্ষে  র‍্যাব ফোর্সেস কর্তৃক বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গৃহীত হয়েছে। উক্ত সম্মেলন উপলক্ষে সকল ধরনের অনাকাংঙ্খিত পরিস্থিতি মোকাবেলায় র‍্যাব ফোর্সেস কর্তৃক পর্যাপ্ত সংখ্যক র‍্যাব সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে র‍্যাব গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করেছে। নিরাপত্তা জোরদার করতে র‍্যাব-৩ সহ ঢাকাস্থ ব্যাটালিয়নসমূহ নিজ নিজ দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় পর্যাপ্ত সংখ্যক র‍্যাব সদস্য মোতায়েন রেখেছে।

সম্মেলনের স্থানসহ পার্শ্ববর্তী স্থানসমূহে র‍্যাবের বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড দ্বারা সুইপিং সম্পন্ন করা হবে। সম্মেলনস্থল ও  পার্শ্ববর্তী স্থানসমূহে সার্বিক নিরাপত্তার জন্য থাকবে র‍্যাবের স্ট্রাইকিং রিজার্ভ, ফুট ও মোবাইল পেট্রল, ভেহিক্যাল স্ক্যানার, , চেক পোস্ট এবং সিসিটিভি মনিটরিং। যে কোন ধরনের নাশকতা ঠেকাতে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও  প্রবেশদ্বারসমূহে র‍্যাবের চেকপোস্ট স্থাপনের মাধ্যমে সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের তল্লাশি করা হবে।  দুষ্কৃতিকারী বা সন্ত্রাসী কর্তৃক কোন ধরনের হামলা বা নাশকতার তথ্য পাওয়া যায় নি। তারপরেও আমরা যে কোন ধরনের উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে প্রস্তুত রয়েছি। অনলাইনের  যে কোন ধরনের মিথ্যা তথ্য বা গুজব ঠেকাতে র‍্যাবের সাইবার মনিটরিং টীমের সার্বক্ষনিক নজরদারী অব্যাহত রয়েছে।নাশকতাসহ যেকোন উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবেলায় র‍্যাব স্পেশাল ফোর্স টীম, র‍্যাবের হেলিকপ্টার, বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট, ডগ স্কোয়াড সার্বক্ষনিক প্রস্তুত রয়েছে।

প্রসঙ্গত, আওয়ামী লীগের ২২তম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে শনিবার (২৪ ডিসেম্বর)। ইতোমধ্যে সম্মেলনের সকল প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। ঐতিহ্যবাহী দলটির সম্মেলন থেকে ২০৪১ সালের মধ্যে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ার প্রত্যয় তুলে ধরা হবে। এ বিষয়টি সামনে রেখেই সম্মেলনের স্লোগান নির্ধারণ করা হয়েছে ‘উন্নয়ন অভিযাত্রায় দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের উন্নত, সমৃদ্ধ ও স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়’।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পর্দা উঠবে সম্মেলনের। শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর আধঘণ্টার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও শেখ হাসিনার বক্তব্যের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এই অধিবেশন।


মন্তব্য করুন

Logo

© 2023 Dinkal24 All Rights Reserved.