এনটিএমসি’র মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহন করলেন মেজর জেনারেল জিয়াউল আহসান।

ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার—এনটিএমসির মহাপরিচালকের (ডিজি) দায়িত্ব পেলেন মেজর জেনারেল জিয়াউল আহসান। এই সেনা কর্মকর্তাকে প্রেষণে এনটিএমসির মহাপরিচালক নিয়োগ দিয়ে তাঁর চাকরি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগে ন্যস্ত করে সোমবার আদেশ জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

গত জুলাই মাসে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল থেকে মেজর জেনারেল পদে পদোন্নতি পান জিয়া। ২১ জুলাই জিয়াউল আহসানকে প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এনটিএমসির মহাপরিচালকের দায়িত্ব দিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়। এর আগে তিনি প্রতিষ্ঠানটির পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

পেশাদারিত্বের সঙ্গে অর্পিত দায়িত্ব পালন করবেন জানিয়ে জিয়াউল আহসান ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সেনাবাহিনীর প্রধান আমার ওপর আস্থা রাখায় আমি কৃতজ্ঞ। পেশাদারিত্বের সঙ্গে অতীত অভিজ্ঞতার আলোকে সেই দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পালন করব।’

জানা গেছে, এবারই প্রথম ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার বা এনটিএমসির মহাপরিচালকের পদটি সৃষ্টি হয়েছে। আর সেই পদটিতে প্রথম কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পেলেন মেজর জেনারেল জিয়াউল আহসান।

ডিজিটাল বাংলাদেশের নিরাপত্তা তথা সারা বিশ্বে সাইবার অপরাধীদের শনাক্ত করা ও দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং গোয়েন্দা সংস্থাকে সব ধরনের তথ্যপ্রযুক্তি সহায়তা প্রদানে এনটিএমসি ২৪ ঘণ্টা কাজ করছে।

জিয়াউল আহসান ১৯৯১ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কমিশন লাভ করেন। তিনি সেনাবাহিনীর একজন প্রশিক্ষিত কমান্ডো ও প্যারাট্রুপার। ২০০৯ সালের ৫ মার্চ র‌্যাব-২ এর উপ-অধিনায়ক এবং একই বছর লে. কর্নেল পদে পদোন্নতি পেয়ে র‌্যাব সদরদপ্তরের গোয়েন্দা শাখার পরিচালক হন। ২০১৩ সালের ডিসেম্বর তিনি কর্নেল পদে পদোন্নতি পেয়ে একই বাহিনীর অতিরিক্ত মহাপরিচালকের দায়িত্ব পান।

পরবর্তীতে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পদে পদোন্নতি পেয়ে ২০১৬ সালের এপ্রিলে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা পরিদপ্তরে (এনএসআই) পরিচালক হন। পরের বছরের মার্চে তাকে ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টারের (এনটিএমসি) পরিচালক করে সরকার।

মন্তব্য করুন

Logo

© 2022 Dinkal24 All Rights Reserved.